শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭

English

সাইবার নিরাপত্তাতেও একসঙ্গে কাজ করতে উদ্যোগি ভারত-বাংলাদেশ

প্রকাশিত
এপ্রিল ১০, ২০১৭
news-image

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ শনিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, দুটি সমঝোতা স্মারকের মধ্যে একটি সাইবার নিরাপত্তা সংক্রান্ত এবং অন্যটি আইটি খাতের উন্নয়নে সার্বিক বিষয়াদিকে অন্তর্ভুক্ত করার মাধ্যমে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দুই দেশের পারস্পরিক সহযোগিতা সংক্রান্ত।

সাইবার নিরাপত্তা সংক্রান্ত চুক্তিটি বিডি সার্ট (বাংলাদেশ সাইবার ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম) ও সার্ট ইন (সাইবার ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম-ইন্ডিয়া) এর মধ্যে সম্পাদিত হয়। চুক্তির আওতায় বিডি সার্ট ও সার্ট-ইন সাইবার নিরাপত্তায় পারস্পরিক সহযোগিতার ক্ষেত্র উন্মোচন ও সাইবার নিরাপত্তা সংক্রান্ত সব সমস্যা সমাধানে একযোগে কাজ করবে।

অন্য সমঝোতা স্মারকটি বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ ও ভারতের ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি মন্ত্রণালয়ের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয়।

সমঝোতা স্মারক অনুযায়ী ই-গভর্নেন্স, এম-গভর্নেন্স, ই-লার্নিং, টেলিমেডিসিন খাতে উভয় পক্ষের ‘বেস্ট প্র্যাকটিস’ বিনিময়; গ্রামীণ এলাকায় ইন্টারনেট এনাবল্ড কিয়স্ক বা কমন সার্ভিস সেন্টার স্থাপন; বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং বা বিজনেস প্রসেস ম্যানেজমেন্ট, নলেজ প্রসেস আউটসোর্সিং এবং হাই টেক পার্কসহ আইটি সার্ভিস সংক্রান্ত শিল্পের নিয়ন্ত্রণ নীতিমালা ও প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোর ওপর বিশেষ গুরত্বারোপ করা হবে।

এছাড়া দুই দেশের আইটি সংগঠনগুলোর মধ্যে বিজনেস টু বিজনেস অংশীদারিত্ব বাড়ানো; গবেষণা ও উন্নয়ন এবং উদ্ভাবনে দুই দেশের সরকারি-বেসরকারি সংস্থার সহযোগিতায় যৌথ প্রকল্প বাস্তবায়ন; কর্মশালা, সেমিনার, বিশেষজ্ঞ পরিদর্শনসহ নিয়মিত প্রশিক্ষণ ও কারিগরি প্রদর্শনী আয়োজন করা; স্টার্টআপস/উদ্ভাবন উন্নয়নে পারস্পরিক বিশেষায়িত সহযোগিতা অব্যাহত রাখা হবে।

সমঝোতা স্মারক ও চুক্তি পত্র হস্তান্তরের পর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর এই ঐতিহাসিক সফরে তথ্যপ্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট দুটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হওয়া বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের জন্য একটি মাইলফলক। এই সমঝোতা স্মারক ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে।”

এ সব কার্যক্রম বাস্তবায়নে উভয় দেশের সমন্বয়ে একটি ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করা হবে, তারা অন্তত একবার বৈঠকে মিলিত হবে। এ সব কার্যক্রমে সংশ্লিষ্ট দেশ তার নিজ নিজ অর্থের যোগান দেবে বলে জানায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।