শনিবার, ২২ জুলাই ২০১৭

English

কালো টাকা সাদা করতে এসবিআইয়ের একটি শাখায় ২০০০ অ্যাকাউন্ট

প্রকাশিত
এপ্রিল ১০, ২০১৭
news-image

কালো টাকা ধরতে রাতারাতি বাতিল পাঁচশো ও হাজার টাকার নোট। কিন্তু মোদি সরকারের মাস্টার স্ট্রোকের পাল্টা হিসেবে নোট বাতিলের পর থেকেই শুরু হয়েছে বিভিন্ন এসকেপ রুট।

নোট বাতিলের কথা শোনার পর থেকে কালা ধনের মালিকদের রাতের ঘুম উধাও হয়ে গিয়েছিল ৷ তবু কুছ পরোয়া নেই ৷ আয়কর ও রাজস্ব বিভাগের নজর গলে কালো টাকাকে সাদা করার অভিনব পন্থা খুঁজে বার করেছিলেন বেশ কিছু নাগরিক ৷

কালো টাকা সাদা করতে স্টেট ব্যাঙ্কের বরেলি শাখায় খোলা হয়েছে দু’হাজারের বেশি নতুন অ্যাকাউন্ট ৷ সিবিআই তদন্তে জানা গিয়েছে, ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রায় ৮ কোটি টাকা পুরনো নোটে জমা পড়েছিল ওই অ্যাকাউন্টগুলিতে ৷ তবে, জমা হওয়া টাকার উত্‍স এখনও পাওয়া যায়নি।

ঘটনায় ব্যাঙ্কের বেশ কয়েকজন কর্মীর যোগ রয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে ৷ কয়েকজন ব্যাঙ্ক কর্মী ও অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷

সূত্রের খবর, জানুয়ারি মাসের ২ তারিখ আচমকা ওই ব্যাঙ্ক শাখায় হামা দেয় সিবিআই আধিকারিকরা ৷ তদন্তে উঠে আসে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য ৷ জানা যায়, ৮ নভেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ২,৪৪১ নতুন অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে ৷ এরমধ্যে ওই শাখায় ৬৬৭টি সেভিংস অ্যাকাউন্ট, ৫৩টি কারেন্ট অ্যাকাউন্ট, ৯৪টি জনধন অ্যাকাউন্ট, ৫০টি পিপিএফ অ্যাকাউন্ট, ১৫১৮টি FD অ্যাকাউন্ট, ১৩টি ফেস্টিভ্যাল অ্যাকাউন্ট ও ২টি সিনিয়র সিটিজেন অ্যাকাউন্ট খোলা হয়।

৭৯৪ ক্ষেত্রে ১ লাখের বেশি টাকা জমা পড়েছে অ্যাকাউন্টগুলিতে ৷ একাধিক জালিয়াতি ধরা পড়েছে সিবিআই তদন্তে ৷ ওই শাখার কয়েকজন কর্মী ও কয়েকজন অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে।