শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭

English

শ্রীকৃষ্ণকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য : ক্ষমা চাইলেন প্রশান্ত

প্রকাশিত
এপ্রিল ৫, ২০১৭
news-image

শ্রীকৃষ্ণকে নিয়ে যা যা বলেছেন তা বলা ঠিক হয়নি, বলে স্বীকার করে নিয়ে ক্ষমা চাইলেন আইনজীবী এবং রাজনীতিবিদ প্রশান্ত ভূষণ। মুছে ফেললেন ‘বিতর্কিত’ টুইটও।

টুইটারে উত্তরপ্রদেশ সরকারের গঠিত ‘অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড’-এর সমালোচনা করতে গিয়ে সম্প্রতি শ্রীকৃষ্ণের উপমা টেনে ‘আপত্তিকর’ পোস্ট করে বসেন প্রশান্ত ভূষণ। মন্তব্যের প্রেক্ষিতে চারদিকে তীব্র আক্রমণের মুখে পড়তে হয় আইনজীবীকে।

টুইটারে তিনি লিখেছিলেন, ‘রোমিও স্রেফ একজনকে ভালবেসেছিলেন। সেখানে লেজেন্ডারি কৃষ্ণ ইভ-টিজার ছিলেন।’ প্রশান্ত যোগ করেন, ‘আদিত্যনাথের কী সাহস আছে, ওই বাহিনীকে “অ্যান্টি-কৃষ্ণ স্কোয়াড” হিসেবে উল্লেখ করার।’

ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত হানার অভিযোগে দিল্লিতে প্রশান্তর বিরুদ্ধে একের পর এক এফআইআর দায়ের হয়। শুধু তাই নয়, প্রতিবাদ দেখানো হয় আইনজীবীর নয়ডার বাসভবনের সামনেও। সেখানে কেউ বা কারা বাড়ির নামফলকে কালি লেপে দিয়ে চলে যায় বলেও জানা যায়।

পরিস্থিতি বেগতিক দেখে টুইটারে তাঁর মন্তব্যের সাফাই দেওয়ার চেষ্টা করেছেন প্রশান্ত ভূষণ। দাবি করেন, তাঁর টুইট বিকৃত করে দেখানো হচ্ছে। তিনি শুধু বলতে চান, রোমিও ব্রিগেডের যুক্তিতে তো শ্রীকৃষ্ণকেও ইভ টিজার মনে হবে।

যদিও, তাতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার কোনও লক্ষণ দেখা যায়নি। এদিন দিল্লির বিজেপি প্রধান সতীশ উপাধ্যায় তাঁকে ‘নকশাল’ বলেও কটাক্ষ করেন। বলেন, হিন্দুদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দিয়ে প্রশান্ত ছাড় পাবে না। ওর মতো নকশালকে শিক্ষা দেওয়া উচিত আমাদের।

অবশেষে বিতর্কে ইতি টানতে এদিন ক্ষমা চেয়ে নেন প্রশান্ত। টুইটারে তিনি লেখেন, আমি বুঝতে পেরেছি যে রোমিও স্কোয়াড ও শ্রীকৃষ্ণকে নিয়ে বলা আমার টুইট যথাযথ ছিল না। অনিচ্ছাকৃত হলেও, এর ফলে বহু মানুষের ভাবাবেগে আঘাত লেগেছে। তাই ক্ষমা চাইছি ও টুইট ডিলিট করছি।