শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭

English

জেনে নিন জেনারেল রাওয়াত এবং জেনারেল বাজওয়ার মধ্যে কি কি সমতা আছে

প্রকাশিত
ডিসেম্বর ১৯, ২০১৬
news-image

৩১ ডিসেম্বর রিটায়ার হতে যাওয়া ভারতীয় সেনা প্রধান দলবীর সিং সুহাগের স্থান নেবেন জেনারেল বিপিন রাওয়াত। এই মুহুর্তে তিনি সহ সেনাধ্যক্ষ রূপে কাজ করছেন। জেনারেল সুহাগের মতই রাওয়াতও গোর্খা রেজিমেন্টের। এটাই প্রথম যে একই রেজিমেন্ট থেকে দুজন পরপর সেনাধিকারিক হিসাবে কাজ করছেন। রাওয়াতের নিযুক্তির নিয়ে হাজার প্রশ্নের মধ্যে এটাও ঠিক যে তাঁর নিয়োগের সময় পাকিস্তানের সেনা প্রধান জেনারেল বাজওয়ার কথা মাথায় রাখা হয়েছে। জেনারেল বাজওয়া ২৮ নভেম্বর পাকিস্তানের সেনা প্রধানের পদে বসেছিলেন। এই দুই সেনা প্রধানের মধ্যে অনেক বিষয় একই নজরে আসছে।

-দুটি দেশের নিযুক্তিতে সিনিয়রিটি না দেখে অভিজ্ঞতাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

-দুটি দেশের সেনা প্রধান নিজের দেশের সবথেকে ভালো সংস্থা থেকে সেনা শিক্ষা নিয়েছেন। জেনারেল বাজওয়া ডিফেন্স ইউনিভার্সিটি, পাকিস্তান অ্যান্ড ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমি থেকে পাস আউট হয়েছেন এবং জেনারেল রাওয়াত ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমি থেকে পাস আউট হয়েছেন।

-দুই আধিকারিকেরই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করার অভিজ্ঞতা আছে।

-জেনারেল বাজওয়াকে প্রায় ৪ জন সিনিয়র আধিকারিক পেরিয়ে সেনা প্রধান করা হয়েছে। অন্যদিকে জেনারেল রাওয়াতকে দজন সিনিয়র আধিকারিককে পেরিয়ে সেনা প্রধানের পদ দেওয়া হয়েছে।

-দুজনের নিযুক্তিতেই তাঁদের রণনীতি এবং সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীরকে মাথায় রাখা হয়েছে।

-জেনারেল রাওয়াত সেনা সঞ্চালন করেন সমতা বজায় রেখে। অন্যদিকে একজন সেনা আধিকারিক হিসাবে জেনারেল বাজওয়ার রেকর্ডও বেশ ভাল।

-দুজনের কাছেই পাস লাইন অফ কন্ট্রোলে পোস্টিংয়ের অভিজ্ঞতা আছে।

-জেনারেল বাজওয়া উত্তর-পূর্বে প্রচুর গুরুত্বপূর্ণ দায়ীত্ব সামলেছেন। তিনি মায়ানমার জঙ্গিদের বিরুদ্ধে করা সার্জিকাল স্ট্রাইককে সফল করেছিলেন। অন্যদিকে বাজওয়া বালুচিস্তানে পাকিস্তান সেনা দ্বারা চালানো অপারেশন পিস মিশনের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

-দুই সেনা প্রধানেরই বাবা আগে সেনা আধিকারিক ছিলেন।

-বিপিন রাওয়াত এবং পাকিস্তানের জেনারেল বাজওয়া সংযুক্ত রাষ্ট্রতে কঙ্গো মিশনের সময় শান্তিদূত রূপে কাজ করেছেন।